পূর্বশত্রুতার জেরে যুবককে গুলি করে হত্যা

আগের সংবাদ

ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’, সদরঘাটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

পরের সংবাদ

পায়রায় ৭ নম্বর বিপদ সংকেত প্রস্তুত ১৫০ আশ্রয়কেন্দ্র ও ২০ মুজিবকেল্লা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৪, ২০২৩ , ১০:০০ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৪, ২০২৩ , ১০:০০ পূর্বাহ্ণ

ঘূর্ণিঝড় হামুনের প্রভাবে উপকূলীয় অঞ্চল কলাপাড়ায় গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির সঙ্গে বাতাসের তীব্রতা বাড়ছে। পাশাপাশি কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে ঢেউ বাড়ছে। আকাশ মেঘলা রয়েছে। এতে পায়রায় ৪ নম্বর বিপদ সংকেত উঠিয়ে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

এদিকে জীবন ও সম্পত্তির নিরাপত্তার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ১৫০টি আশ্রয়কেন্দ্র ও ২০টি মুজিবকেল্লা। নিরাপদ স্থানে অবস্থান গ্রহন এবং ঝুঁকিপূর্ন এলাকার বাসিন্দাদের সরকারি আশ্রয়কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসন ও সিপিপির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কেউ আশ্রয়কেন্দ্র যায়নি।

আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগরব ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম-মধ্যে বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’ উত্তর পূর্ব দিক অগ্রসর হয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রুপান্তর হয়েছে। আবহাওয়া অফিসের তথ্যমতে, আগামীকাল দুপুরের মধ্যে এ অঞ্চল অতিক্রম করতে পারে।

 

কলাপাড়া উপজেলা ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচীর সহকারী পরিচালক মো. আসাদুজ্জামান বলেন, ইতিমধ্যে প্রতিটি ইউনিটের টিম লিডারকে সতর্ক সংকেত দেওয়ার জন্য বলে দিয়েছি। আমরাও প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি ইতিমধ্যে।

 

কলাপাড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ১৫০টি আশ্রয়কেন্দ্র ও ২০টি মুজিবকেল্লা প্রস্তুত করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, রুপান্তর প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়