কার্যালয়ে ইউপি চেয়ারম্যানকে কুপিয়ে জখম

আগের সংবাদ

পদোন্নতি পেলেন ৪৬ এএসপি

পরের সংবাদ

বেনাপোল দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচারের সময় ১২ টি স্বর্ণের বার সহ ৩ পাচারকারী আটক

প্রকাশিত: নভেম্বর ১২, ২০২৩ , ১১:১৯ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১২, ২০২৩ , ১১:১৯ পূর্বাহ্ণ

যশোরের বেনাপোল দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে ভারতে পাচারের সময় ১২ টি স্বর্ণের বার সহ ৩ পাচারকারীকে আটক করেছে বিজিবি।

শনিবার রাত ৩ টার দিকে বারোপুতা  কৃষ্ণপুর নামক  স্থানে অভিযান চালিয়ে এ স্বর্নের চালানটি আটক করা হয়।১ কেজি ৩৯৯ গ্রাম (১১৯.৯৮ ভরি) ওজনের ১২ পিস স্বর্ণের  বার এবং ০১টি মোটর সাইকেলসহ ৩ জন কে আটক করে বিজিবি।আটকরা হলো, আজমীর, জালাল ও নুরুজ্জামান এদের সবার বাড়ি বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামে।

 

২১ বিজিবি ব্যাটেলিয়ানের অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোহাম্মদ খুরশীদ আনোয়ার, পিএসসি, ইঞ্জিনিয়ার্স জানান, ১১ নভেম্বর ২০২৩ তারিখ গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, স্বর্ণের একটি চালান বাংলাদেশ হতে ভারতে পাচার হতে পারে।

 

উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে খুলনা ব্যাটালিয়ন (২১ বিজিবি) এর অধিনায়কের সার্বিক দিক নির্দেশনায় দৌলতপুর বিওপি’র একটি টহল দল মেইন পিলার ১৭/৭ এস এর ১৭০ আর পিলার হতে আনুমানিক ৭.৬ কিলোমিটার বাংলাদেশের অভ্যন্তরে দৌলতপুর গ্রামস্থ কৃষ্ণপুর নামক স্থানে রাস্তার পার্শ্বে গোপনীয়তার সাথে অবস্থান নেয়।

 

কিছু সময় পর বিজিবি টহল দল বেনাপোল হতে দৌলতপুর অভিমুখে ০১টি মোটর সাইকেল আসতে দেখে এবং টহল দলের নিকটবর্তী আসলে মোটর সাইকেল থামার সংকেত দিলে না থেমে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে বিজিবি টহল দল তাদেরকে ধাওয়া করতঃ আটক করতে সক্ষম হয়। আটককৃত আসামী (১) মোঃ আজমীর (২০), পিতা-মোঃ আনার উদ্দিন, (২) মোঃ জালাল উদ্দিন (৩৭), পিতা-মোঃ আলী কদম, (৩) মোঃ নুরুজ্জামান (৩৮), পিতা-মোঃ রুহুল আমিন সকলের ঠিকানা গ্রাম-পুটখালী, পোষ্ট-বালুন্ডা, থানা-বেনাপোল পোর্ট, জেলা-যশোরকে তল্লাশী করে ০১ কেজি ৩৯৯ গ্রাম ওজনের ১২ পিস স্বর্ণের বার উদ্ধার করে।

 

উক্ত স্বর্ণের বারগুলো ১ জন আসামীর বডিতে কস্টেপ দ্বারা অভিনব কায়দায় লুকায়িত ছিল। ধৃত আসামীরা স্বর্ণের বারগুলো দৌলতপুর সীমান্ত এলাকা দিয়ে ভারতে পাচার করতে চেয়েছিল। আটককৃত স্বর্ন ১,২৫,৯৮,০০০/- টাকা এবং মোটর সাইকেল ১,৫০,০০০/- টাকাসহ সর্বমোট সিজার মূল্য- ১,২৭,৪৮,০০০/-! (এক কোটি সাতাশ লক্ষ আটচল্লিশ হাজার) টাকা। উক্ত স্বর্ণের বারগুলো ট্রেজারী অফিসে এবং আসামী ও মোটর সাইকেল থানায় হস্থান্তরের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, রুপান্তর প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়